সোমবার, ৩০ নভেম্বর ২০২০, ০৪:১০ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম
শিরোনাম
লেবানন প্রবাসী হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু!  কেশবপুরে বিদ্যালয়গামী মেয়ে শিশুর মা’দের মাঝে নগদ অর্থ ও হাইজিং উপকরণ বিতরণ  চাঁপাইনবাবগঞ্জে মাদকদ্রব্য ধ্বংস  সিংড়া বোয়ালিয়া আওয়ামীলীগের আয়োজনে বিশেষ বর্ধিত সভা ২০২০ অনুষ্ঠিত মৌলভীবাজারের কুলাউড়ায় ৯ম ত্রৈ-বার্ষিক স্কাউট কাউন্সিল সভা অনুষ্ঠিত। মাদারগঞ্জে পুনরায় যুবলীগের সভাপতি ফরিদুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম নির্বাচিত  জুড়ীতে জাতীয় পার্টি নেতা মরহুম তারা মিয়া স্মরণে শোকসভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্টিত শ্রীরবরদী ইট ভাটার পাহারাদারদের লাশ উদ্ধার  গাজীপুরের কালীগঞ্জে স্বেচ্ছাসেবকলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত শীতলক্ষ্যা নদীতে ঝাটির নিচে আটকে অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষকের মৃত্যু //

মিথ্যা মামলায় বেকসুর খালাস পেলেন আসামি, বাদীর বিরুদ্ধ মামলার নির্দেশ

প্রতিবেদকের নাম / ১৯ শেয়ার
প্রকাশিত : বুধবার, ১১ নভেম্বর, ২০২০, ১১:২২ পূর্বাহ্ন

নারী ও শিশু নির্যাতন আইনের ৯/১ ধারায় করা মামলায় অপরাধ প্রমাণিত না হওয়ায় বেসরকারি স্যাটেলাইট টেলিভিশন চ্যানেল এটিএন বাংলার অনুষ্ঠান ব্যবস্থাপক আসলাম শিকদারকে বেকসুর খালাস দিয়েছেন আদালত।

বুধবার (১৪ অক্টোবর) দুপুরে ঢাকার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-৫ এর বিচারক সামছুন্নাহার এ রায় ঘোষণা করেন।

আসলাম শিকদারের বিরুদ্ধে হাতিরঝিল থানায় ২০১৮ সালের ১৩ সেপ্টেম্বর মামলাটি করেছিলেন অদ্রিতা অজানা গিনি ওরফে সানজিদা ফেরদৌস সেঁজুতি।

মামলাটির তদন্ত শেষে ২০১৮ সালের ১৪ নভেম্বর চার্জশিট দাখিল করা হয়। পরের বছর ৬ ফেব্রুয়ারি আসামির বিরুদ্ধে চার্জগঠন করে বিচার শুরুর আদেশ দেন আদালত। মামলায় ১৩ জন সাক্ষীর মধ্যে ১৩ জনের সাক্ষ্য নেওয়া হয়। সাক্ষ্য-প্রমাণে আসামির বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ মিথ্যা প্রমাণিত হয়।

মামলায় খালাস পাওয়ায় সন্তোষ প্রকাশ করেছেন এটিএন বাংলার কর্মকর্তা আসলাম শিকদার। তার দাবি ব্যক্তিগতভাবে ক্ষতিগ্রস্ত ও সামাজিকভাবে হেয় করতেই ওই নারী নেপথ্যের কুশীলবদের সহযোগিতায় মিথ্যা ও ষড়যন্ত্রমূলক মামলা করেছিলেন। মিথ্যা মামলা দেওয়ায় তিনি সংশ্লিষ্ট আদালতের নির্দেশে বাদী ও সাক্ষীদের বিরুদ্ধে পিটিশন মামলা দায়ের করবেন।

আসলাম শিকদার বলেন, ‘কোনো ধরনের সাক্ষ্য-প্রমাণ মেডিকেল পরীক্ষা ছাড়াই বানোয়াট তথ্যের ওপর ভিত্তি করে মামলার আলামতে অবৈধভাবে অন্য একটি মেয়ের ছবি দিয়ে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা করা হয়। আমি মামলাটি চ্যালেঞ্জ করলে মামলা বাদী অদ্রিতা অজানা গিনি ওরফে সানজিদা ফেরদৌস সেঁজুতি হাতিরঝিল থানায় আমার বিরুদ্ধে আটটি জিডি-মামলা করেন। তদন্ত শেষে থানাতেই প্রাথমিকভাবে সাতটি মামলা মিথ্যা প্রমাণিত হয়। এ ছাড়া আমার নামে অবৈধ অস্ত্রের অবান্তর ও কাল্পনিক জিডি-মামলাটি সিএমএম কোর্ট আমলেই নেয়নি।’

তিনি আরও বলেন, ‘নারী ও শিশু নির্যাতন মামলাটির রায় যেন সহজে না হয় রায়ের তারিখ পেছানোর জন্য বারবার কৌশলে আবেদন করা হয়েছিল। আমাকে নানাভাবে বাদীপক্ষ ও মামলার পেছনের হোতারা নাজেহাল করেছে। একের পর এক মামলা-জিডি দিয়ে আমাকে ও আমার পরিবারকে বিপন্ন করা হয়েছে। অবশেষে আমি ন্যায়বিচার পেয়েছি। আমি আশাবাদী মিথ্যা মামলাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক সাজা হবে। এর মাধ্যমে তাদের মুখোশ উন্মোচিত হবে।

এদিকে আসলাম শিকদারের আইনজীবী এম আফাজ মাহমুদ রুবেল বলেন, ‘মামলার রায়ে আমার মক্কেল বেকসুর খালাস পেয়েছেন। মিথ্যা মামলা করায় আমরা বাদী ও সাক্ষীদের বিরুদ্ধে বিধি মোতাবেক পিটিশন মামলা দায়ের করেছি।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ সম্পর্কিত আরো সংবাদ

পুরাতন সব সংবাদ

এক ক্লিকে বিভাগের খবর
ব্রেকিং নিউজ
ব্রেকিং নিউজ